Cart

Best Seller

ইংরেজি সাহিত্যের ইতিহাস

Availability: In stock

৳ 200.00 ৳ 160.00

সাহিত্য আসমান থেকে নাজিল হয় না। একটা সমাজের সংকট, সমস্যা, সম্ভাবনা, টানাপোড়েন থেকেই সাহিত্য আসে এবং সাহিত্যে এর ছাপ ও রেশ থেকে যায়। এ বইটিতে ইংরেজদের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ধাপ-উল্লম্ফন ও অবনমন, উত্থান ও পতন, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংকট এবং এর সাথে সাহিত্যের ক্রমযাত্রা উঠে আসে।

ইংরেজি সাহিত্যের সাথে সহজে পরিচিত হওয়া যায় এমন বই কম। কিন্তু দেশে ইংরেজি বিভাগে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। প্রতিটি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগ রয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য করে এবং যারা ইংরেজি সাহিত্য পাঠ ও রস আস্বাদন করতে চান, তাদের জন্য এই বইটি লেখা। এ বইটি এমনভাবে  লেখা হয়েছে যেটা স্কুল-কলেজ লেভেলের ছাত্র-ছাত্রীরাও পড়ে মজা পাবে।

যারা ইংরেজি নিয়ে পড়াশোনা করছেন, করতে ইচ্ছুক, ইংরেজি সাহিত্যের প্রতি যাদের ভালোলাগা-ভালোবাসা, কৌতূহল রয়েছে। যারা মনে করেন ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে আপনার জ্ঞান শূন্যের কোঠায় তারা এক নিমিষেই পড়ে নিতে পারেন বইটি।বইটিতে ইংল্যান্ডের ইতিহাসে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা এবং সেই ঘটনার সাথে সাহিত্যের সম্পর্ক ও বিকাশের পরম্পরা নিয়ে আলোচনা রয়েছে। বইটিকে শিক্ষার্থীরা ইংরেজি সাহিত্যে প্রবেশদ্বার হিসেবে নিতে পারেন। বইটি পড়ার সময় মনে হবে পাঠক লেখকের সাথে ইংরেজি সাহিত্যের সুদূর অতীত ও নিকট ইতিহাসে ভ্রমণ করার অভিযান নেমেছে

Quantity :
Compare

আমি মনে করি লেখকের লেখাই তার বায়োগ্রাফি। এ বই লেখার অধিকার আমার আছে কিনা শুধু সেটা জানানের জন্য বলতে হচ্ছে, আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে ২০১১ সালে অনার্স পাশ করেছি। ২০১৩ সালে ইংরেজি সাহিত্যে বেশ ভালো সিজিপিএ নিয়ে মাস্টার্স পাশ করেছি। ইংরেজি সাহিত্য পড়ার পেছনে কারণ ছিল বিশ্বসাহিত্য চষে বেড়ানো-সেটা বেশ ভালোভাবে করার চেষ্টা করেছি। গত ছয়-সাতবছর ধরে পুরোদমে লেখালেখি করে আসছি এবং লেখালেখিকেই পেশা ও নেশা হিসেবে নিয়েছি। ২০১২ সালে In Praise- In Memory- In Ink নামে, ২০১৩ সালে A Poet’s View of Being শিরোনামে কানাডা থেকে প্রকাশিত দুটি কবিতার সংকলনে যথাক্রমে ২টি ও ৭টি ইংরেজি কবিতা স্থান পেয়েছিল।

বাংলা একাডেমির সাহিত্য পত্রিকা ‘উত্তরাধিকার’ -এর ৬১তম সংখ্যায় ১২টি জেন কবিতার অনুবাদ প্রকাশিত হয়। প্যারিস রিভিয়্যুতে প্রকাশিত হোর্হে লুই বোর্হেস, পাবলো নেরুদা, হারুকি মুরাকামিসহ বাঘাবাঘা বেশ কিছু কবি-সাহিত্যকের সাক্ষাৎকার অনুবাদ করেছি।‘দ্য আর্ট অব ওয়ার’ সেন্ট এগজুপেরির ‘লিটল প্রিন্স। আমার জন্ম কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া থানার শিদলাই গ্রামে। বড় হওয়ার সাথে সাথে পুরো দেশ ও পুরো বিশ্বকে আমার জন্মস্থান মনে করা শুরু করছি।লেখালেখি আর পড়াশুনার পাশাপাশি তুরণদের সাথে মিশতে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সাহিত্য, দর্শন ও ইতিহাস নিয়ে আড্ডা দিয়ে বেড়াতে খুব ভালো লাগে! বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম (বিডিএসএফ) আমার স্বপ্নের জায়গা; যেটাতে কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করছি। যেকোনো পরামর্শ, সমালোচনা, প্রশ্ন কিংবা যোগাযোগ করতে

সাহিত্য আসমান থেকে নাজিল হয় না। একটা সমাজের সংকট, সমস্যা, সম্ভাবনা, টানাপোড়েন থেকেই সাহিত্য আসে এবং সাহিত্যে এর ছাপ ও রেশ থেকে যায়। এ বইটিতে ইংরেজদের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ধাপ-উল্লম্ফন ও অবনমন, উত্থান ও পতন, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংকট এবং এর সাথে সাহিত্যের ক্রমযাত্রা উঠে আসে।ইংরেজি সাহিত্যের সাথে সহজে পরিচিত হওয়া যায় এমন বই কম। কিন্তু দেশে ইংরেজি বিভাগে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। প্রতিটি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগ রয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য করে এবং যারা ইংরেজি সাহিত্য পাঠ ও রস আস্বাদন করতে চান, তাদের জন্য এই বইটি লেখা। এ বইটি এমনভাবে  লেখা হয়েছে যেটা স্কুল-কলেজ লেভেলের ছাত্র-ছাত্রীরাও পড়ে মজা পাবে।

যারা ইংরেজি নিয়ে পড়াশোনা করছেন, করতে ইচ্ছুক, ইংরেজি সাহিত্যের প্রতি যাদের ভালোলাগা-ভালোবাসা, কৌতূহল রয়েছে। যারা মনে করেন ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে আপনার জ্ঞান শূন্যের কোঠায় তারা এক নিমিষেই পড়ে নিতে পারেন বইটি।বইটিতে ইংল্যান্ডের ইতিহাসে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা এবং সেই ঘটনার সাথে সাহিত্যের সম্পর্ক ও বিকাশের পরম্পরা নিয়ে আলোচনা রয়েছে। বইটিকে শিক্ষার্থীরা ইংরেজি সাহিত্যে প্রবেশদ্বার হিসেবে নিতে পারেন। বইটি পড়ার সময় মনে হবে পাঠক লেখকের সাথে ইংরেজি সাহিত্যের সুদূর অতীত ও নিকট ইতিহাসে ভ্রমণ করার অভিযান নেমেছে

ISBN-13:

978-984-92067-9-8

Publisher:

Adarsha

Pages:

96

Publication Year:

2016

Dimensions:

8.5×5.5×0.6 inch

Language:

Bengali

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “ইংরেজি সাহিত্যের ইতিহাস”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading...