Cart

Best Seller

গণমাধ্যম: সনাতন ও নতুনের জয়-পরাজয়

Availability: In stock

৳ 150.00 ৳ 120.00

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের  ‘ইন্সটিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব  জার্নালিজম’ শীর্ষক  এক গবেষণাতে বলা হয়, ১৮-২৪ বছর বয়সী তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ২৮ শতাংশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে সংবাদের মূল উৎস হিসেবে ব্যবহার করেন। পাশাপাশি ২৪ শতাংশ তরুণ-তরুণী সংবাদের জন্য টেলিভিশনের বিকল্প হিসেবে সামাজিক যোগাযাগ মাধ্যম ব্যবহার করেন।

শুধুই তরুণ প্রজন্মের কাছেই সংবাদ উৎস হিসেবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি— ৫১% ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই সংবাদ উৎস হিসেবে সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে।

বিশ্বের ২৬টি দেশের প্রায় ৫০ হাজার মানুষের ওপর চালানো জরিপের ফলাফলে  বলা হয়, বৈশ্বিকভাবে সংবাদ-সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর দ্বিতীয় ধাপের একটি ভাঙন লক্ষ করা যাচ্ছে। বিষয়টি ভবিষ্যৎ নিউজ প্রোডাকশন ও প্রকাশক উভয়ের জন্যই সম্ভাব্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। এ কারণে অনেক পুরনো গণমাধ্যমও এখন অনলাইনের দিকে ঝুঁকছে। অনেকেই প্রিন্ট সংস্করণের পাশাপাশি অনলাইন সংস্করণ চালু করতে বাধ্য হচ্ছে।

‘গণমাধ্যম: সনাতন ও নতুনের জয় পরাজয়’ গ্রন্থে লেখক অত্যন্ত প্রাঞ্জলভাষায় দুটি ধারার গণমাধ্যমের গতিপথ বিশ্লেষণ করেছেন।

Quantity :
Compare

সাংবাদিকতায় অভিষেক ১৯৯০-তে। ১৯৯৯ পর্যন্ত সংবাদপত্রে কাজ করা। বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি টেলিভিশন একুশে দিয়ে টেলিভিশন সাংবাদিকতা শুরু।তারপর এটিএন বাংলা, আরটিভি হয়ে দেশের প্রথম সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন সিএসবি নিউজে কাজ করেছেন। বর্তমানে বার্তা প্রধানের দায়িত্বে রয়েছেন সময় সংবাদে।

অনলাইন পত্রিকায় সমসাময়িক বিষয় নিয়ে নিয়মিত লিখে যাচ্ছেন। পাশাপাশি গল্প-উপন্যাস- কবিতা-নাটক-চিত্রনাট্যও লিখছেন। সময় সংলাপ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করছেন। কৈশোর তারুণ্যের বই শ্লোগান নিয়ে স্কুলে স্কুলে শ্রেণিকক্ষের পাশে বইমেলার আয়োজন করে তার আনন্দে সময় কেটে যাচ্ছে। প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে তোমাদের প্রিয়জন, বায়ান্নোর ভাষাকন্যা, একাত্তরের অগ্নিকন্যা, ইটিভি থেকে সিএসবি, গণমাধ্যম কার মাধ্যম, মিডিয়ার পোস্টমর্টেম, রিপোর্টার, রিপোর্টারের সোর্স, ভিডিও জার্নালিজম, টেলিভিশন খবর উৎপাদন, সিএসবি থেকে যমুনা, টিভি রিপোর্টিং, ক্রাইম রিপোর্টার, বিজ্ঞাপন ব্যবচ্ছেদ, বাংলাদেশের জ্বালানী নিরাপত্তা, এনার্জি রিপোটিং।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের  ‘ইন্সটিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব  জার্নালিজম’ শীর্ষক  এক গবেষণাতে বলা হয়, ১৮-২৪ বছর বয়সী তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ২৮ শতাংশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে সংবাদের মূল উৎস হিসেবে ব্যবহার করেন। পাশাপাশি ২৪ শতাংশ তরুণ-তরুণী সংবাদের জন্য টেলিভিশনের বিকল্প হিসেবে সামাজিক যোগাযাগ মাধ্যম ব্যবহার করেন।

শুধুই তরুণ প্রজন্মের কাছেই সংবাদ উৎস হিসেবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি— ৫১% ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই সংবাদ উৎস হিসেবে সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে।

বিশ্বের ২৬টি দেশের প্রায় ৫০ হাজার মানুষের ওপর চালানো জরিপের ফলাফলে  বলা হয়, বৈশ্বিকভাবে সংবাদ-সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর দ্বিতীয় ধাপের একটি ভাঙন লক্ষ করা যাচ্ছে। বিষয়টি ভবিষ্যৎ নিউজ প্রোডাকশন ও প্রকাশক উভয়ের জন্যই সম্ভাব্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। এ কারণে অনেক পুরনো গণমাধ্যমও এখন অনলাইনের দিকে ঝুঁকছে। অনেকেই প্রিন্ট সংস্করণের পাশাপাশি অনলাইন সংস্করণ চালু করতে বাধ্য হচ্ছে।

‘গণমাধ্যম: সনাতন ও নতুনের জয় পরাজয়’ গ্রন্থে লেখক অত্যন্ত প্রাঞ্জলভাষায় দুটি ধারার গণমাধ্যমের গতিপথ বিশ্লেষণ করেছেন।

ISBN-13:

978-984-92660-0-6

Publisher:

Adarsha

Pages:

88

Publication Year:

2017

Dimensions:

8.5×5.5×0.6 inch

Language:

Bengali

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “গণমাধ্যম: সনাতন ও নতুনের জয়-পরাজয়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading...