৳ 200.00 ৳ 160.00

একটা দেশ বা জাতির অগ্রগতির অন্যতম প্রধান সূচক সে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা। বলতে দ্বিধা নেই বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা অত্যন্ত ক্রান্তিকাল পার করছে। বিশেষ করে উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠানসমূহ— যেমন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো— আমলা, কেরানী বা কর্পোরেট কারখানার শ্রমিক সাপ্লাইয়ের ঠিকাদারি নিয়েছে। অন্যদিকে নব্বই দশকের পর থেকে দ্রতগতিতে বাড়তে থাকা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেমন অনেক ছাত্র-ছাত্রীকে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ করে দিচ্ছে কিন্তু সেগুলোও অনেকক্ষেত্রে জ্ঞান নয়— সার্টিফিকেট বিলির অফিসঘর হিসেবে ব্যবহূত হয়ে আসছে।

‘বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোচিং সেন্টার’ গ্রন্থটিতে আলাউদ্দীন মোহাম্মদ অত্যন্ত সাহস ও সততার সাথে বিশ্ববিদ্যালয় এবং উচ্চশিক্ষার চলমান অবস্থাকে আঘাত করেছেন। আবার মমতার প্রলেপ দিয়ে এর সমাধান বা চিকিৎসার পথও বাতলে দিয়েছেন। বইটি একই সাথে সতর্কবাণী আবার আশা জাগানিয়াও।

আলাউদ্দীন মোহাম্মদ বছর পাঁচেক ধরে ঢাকাতে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে তৎপর আছেন, যার বড় অংশ হলো বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রয়োজন নিয়ে আওয়াজ তোলা। এই বইটি তার সেইসব তৎপরতা ও কর্মকাণ্ডের বুদ্ধিবৃত্তিক রূপ।

Quantity :
Add to Wishlist
Compare
Category: Tag:

আলাউদ্দীন মোহাম্মদের জন্ম কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায়। গ্রামের শিদলাই আশরাফ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ঢাকার নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক। পরবর্তী কালে নয়াদিল্লির সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি থেকে ইন্ডিয়ান সরকারের বৃত্তি নিয়ে উন্নয়ন অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর। এখন শিক্ষকতা করছেন উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ে। স্কুলজীবন থেকেই লেখালেখি, আবৃত্তি, বিতর্ক ও বক্তৃতার সাথে যুক্ত আছেন। নটরডেম কলেজের বার্ষিক প্রকাশনা ‘ব্লু অ্যান্ড গোল্ড’ সম্পাদনাসহ ক্লাব কর্মকাণ্ডের স্বীকৃতিস্বরূপ পেয়েছেন ‘অনারেবল স্যালুটেশন’ পুরস্কার। যুক্ত ছিলেন ‘ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিডিং ক্লাব’, ‘বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম’ এবং সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটির ‘ডেভেলপমেন্ট স্টাডি গ্রুপ’ প্রতিষ্ঠায়। বর্তমানে বিভিন্ন সেমিনার এবং কনফারেন্সে নিয়মিত অংশগ্রহণ এবং গবেষণা প্রবন্ধ পাঠ করে যাচ্ছেন। তার আগ্রহ ও চিন্তার কেন্দ্রে মানুষ। আর প্যাশন শিক্ষকতা।

একটা দেশ বা জাতির অগ্রগতির অন্যতম প্রধান সূচক সে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা। বলতে দ্বিধা নেই বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা অত্যন্ত ক্রান্তিকাল পার করছে। বিশেষ করে উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠানসমূহ— যেমন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো— আমলা, কেরানী বা কর্পোরেট কারখানার শ্রমিক সাপ্লাইয়ের ঠিকাদারি নিয়েছে। অন্যদিকে নব্বই দশকের পর থেকে দ্রতগতিতে বাড়তে থাকা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেমন অনেক ছাত্র-ছাত্রীকে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ করে দিচ্ছে কিন্তু সেগুলোও অনেকক্ষেত্রে জ্ঞান নয়— সার্টিফিকেট বিলির অফিসঘর হিসেবে ব্যবহূত হয়ে আসছে।

‘বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোচিং সেন্টার’ গ্রন্থটিতে আলাউদ্দীন মোহাম্মদ অত্যন্ত সাহস ও সততার সাথে বিশ্ববিদ্যালয় এবং উচ্চশিক্ষার চলমান অবস্থাকে আঘাত করেছেন। আবার মমতার প্রলেপ দিয়ে এর সমাধান বা চিকিৎসার পথও বাতলে দিয়েছেন। বইটি একই সাথে সতর্কবাণী আবার আশা জাগানিয়াও।

আলাউদ্দীন মোহাম্মদ বছর পাঁচেক ধরে ঢাকাতে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে তৎপর আছেন, যার বড় অংশ হলো বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রয়োজন নিয়ে আওয়াজ তোলা। এই বইটি তার সেইসব তৎপরতা ও কর্মকাণ্ডের বুদ্ধিবৃত্তিক রূপ।

ISBN-13:

978-984-92067-3-6

Publisher:

Adarsha

Pages:

104

Publication Year:

2016

Dimensions:

8.5×5.5×0.6 inch

Language:

Bengali

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোচিং সেন্টার”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading...